রোজালাইভ আপডেট

রমজান, সেহেরী ও ইফতারের সময় ২০২২

সবাইকে পবিত্র রমজানের শুভেচ্ছা। রমজানকে সবরের মাস বলা হয়। সারাদিনের প্রচণ্ড ক্লান্তি সত্বেও ক্ষুধা নিবারণে ইফতারের অপেক্ষায় সবর করে রোজাদার।
মানুষ চাইলেই লুকিয়ে পানাহার করতে পারে কিন্তু, আল্লাহর ভয়ই মানুষকে লুকিয়ে খাওয়া বা পান করা থেকে বিরত রাখে। সেহেরী ও ইফতারের সময় ২০২২

২০২১ সালে প্রায় শেষ পর্যায়ে। অর্থাৎ, আর অল্প কিছুদিনের মাঝখানেই শুরু হতে যাচ্ছে নতুন বছর। নতুন বছর মানে আরেকটি রমজান মাস আমরা পালন করব। রমজান একটি মর্যাদাশীল মাস। এই মাসে ইবাদত করলে অনেক বেশি সওয়াব বা নেকি পাওয়া যায়। রমজানের প্রতিটি রোজা যথাযথভাবে পালন করলে একজন বান্দা আল্লাহর নিকট অধিক প্রিয় হয়ে ওঠে।

২০২২ সালের রমজান বাংলাদেশ, ভারত ও পাকিস্তানে শুরু হবে ৩ এপ্রিল ২০২২ তারিখে।

 

রমজানের বিশেষ রীতি-নীতি:

ইসলাম অনুযায়ী রমজান মাসে রোজা রাখা অনিবার্য। সেহেরি ও ইফতার এই দুটি রমজান মাসের গুরুত্বপূর্ণ রীতি। রমজানের সকালের খাবারকে সেহেরি বলা হয়, সূর্যাস্তের আগে এটি পালিত হয়। সারাদিনের রোজার রেখে সূর্যাস্তের পর যে খাবার খাওয়া হয় তাকে ইফতার বলা হয়।

রমজান মাস মূলত তিনটি অংশে বিভক্ত:

রমজান মাসের ৩০ দিনকে তিনটি অংশে ভাগ করা হয়েছে। প্রথম অংশ অশরা অর্থাৎ রহমতের। দ্বিতীয় মাগফিরাত ও তৃতীয় অংশ দোজখ থেকে মুক্তি প্রদানকারী। এ সময় রোজাদারদের মিথ্যে কথা বলা উচিত নয়।

কেন রমজান মাস রোজা রাখতে হয় ? 

রোজার গুরুত্ব বা ফজিলত মুখে বলে শেষ করা যাবে না। ইসলামিক পরিভাষার সুবহে সাদিক থেকে সূর্যাস্ত পর্যন্ত আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভের আশায় কোন কিছু খাওয়া ও ইন্দ্রিয় তৃপ্তি থেকে বিরত থাকাটাই হল রোজা। প্রত্যেক প্রাপ্ত বয়স্ক মুসলিম পুরুষ এবং নারীদের জন্য রোজা পালন করা ফরজ । রোজা আমাদের অনেক খারাপ কাজ থেকে বিরত রাখে। রমজান মাস আমাদের সংযম হতে শিক্ষা দেয়।

সেহেরী ও ইফতারের সময় ২০২২

হজরত আবু আইয়ুব আনসারি রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেন রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘যে ব্যক্তি রমজান মাসের রোজা রাখলো এবং শাওয়াল মাসে ৬টি রোজা রাখলো, এটি (শাওয়ালের ৬ রোজা) তার জন্য সারা বছর রোজা রাখার সমতুল্য।’ (মুসলিম)

সেহেরী ও ইফতারের সময় ২০২২

রমজান, সেহেরী ও ইফতারের সময় ২০২২

সেহেরী ও ইফতারের সময় ২০২২

আল্লাহ তাআলা মুমিন মুসলমানকে রমজানের সব প্রশিক্ষণগুলো বছরের বাকি ১১ মাস নিজেদের জীবনে বাস্তবায়ন করার তাওফিক দান করুন। সঠিক নিয়মে রোজা রাখার তৌফিক দান করুন মহান আল্লাহতালা আমাদের। কুরআনের বিধানগুলো যথাযথভাবে পালন করার তাওফিক দান করুন।

আমিন।

_____________________________________
এই পোস্টটি করেছেন: Hamim Hossain ( Web Designer | Digital Marketer | Content Writer )

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button